কম খরচে কিভাবে ওজন কমাবেন

কম খরচে কিভাবে ওজন কমাবেন

পারফেক্ট ওজন কে না চায়? কিন্তু খাদ্যাভ্যাস এর পরিবর্তন এবং ডায়েট ফুড নিয়ে এত শোরগোল এর মাঝে ওজন কমাতে মানুষ দিধাদ্বদন্দে পড়ে যান। আসুন আজ জেনে নেই কম খরচে কিভাবে ওজন কমাবেন?

ওজন কমানোর কথা আসলেই আমরা ভাবি ওজন কমানোর অর্থই হচ্ছে ব্যয়বহুল খাবার ডায়েট চার্টে যোগ করা।

অথচ আপনি চাইলেই কম খরচে ওজন কমাতে পারবেন। এজন্য আপনার থাকতে হবে প্রবল আগ্রহ ও ইচ্ছা শক্তি।। ওজন কমানোর জন্য দামী ওটস, এভোক্যাডো, ব্রাউন রাইস, বিদেশি সিরিয়াল জাতীয় খাবার এর প্রয়োজন নেই।

আপনি অবশ্যই ওজন কমানোর পূর্বে রিসার্চ করবেন। আগেই আটঁ গাটঁ বেধেঁ নেমে পড়বেন না। কম খরচে ওজন কমাতে আপনি সহজলভ্য খাবার দিয়েই পারবেন। তাই অহেতুক খরচের ভয়ে দিন দিন ওজন কমানোর যাত্রা থেকে দূরে থাকবেন না।

কম খরচে ওজন কমাতে চাইলে আপনার কিছু পদ্ধতি অবলম্বন করা উচিত:

  • বয়েলড ফুড বা সিদ্ধ সবজিঃ আপনার ডায়েট চার্টে সিদ্ধ সবজি যোগ করুন। সবজি বা তরকারি অতি মশলা দিয়ে রান্না না করে সিদ্ধ করে খেতে পারেন।
  • সবুজ শাক বা যেকোনো শাকঃ কম খরচে ওজন কমাতে আপনার ডায়েট চার্টে সবুজ শাক যোগ করুন। পালং, কলমি, লাল শাক বা অন্য যেকোন শাক খেতে পারেন। শাক সকাল বা দুপুরে খাবেন। রাতে শাক হজম বা পরিপাকে সমস্যা হতে পারে।
  • ডিমঃ ডিম খুব পুষ্টিকর খাবার এবং সহজলভ্য। শক্তি যোগায় ও প্রোটিনের খুব ভাল উৎস। একটা ডিমে এনার্জি থাকে ১৪৩ ক্যালোরি মতো। আবার কার্বোহাইড্রেট থাকে ০.৭২ গ্রাম মতো,প্রোটিন থাকে ১২.৫৬ গ্রাম,ফ্যাট থাকে ৯.৫১ গ্রাম।এছাড়া ফসফরাস থাকে ১৯৮ মিলিগ্রাম, পটাশিয়াম ১৩৮ মিলিগ্রাম,জিঙ্ক থাকে ১.২৯ মিলিগ্রাম।ওজন নিয়ন্ত্রণ করতে ওজন কমাতে ডিম খান। কেননা অনেকসময় অতিরিক্ত ক্ষিদে পেয়ে যায় বলে যা পাই তা খেয়ে ফেলি। ডিম আসলে এই অতিরিক্ত ক্ষিদেই হতে দেয় না।একটি ডিম শরীর থেকে ৪০০ ক্যালোরি মতো কমাতে পারে। আর ব্যায়াম করলে ডিম তো অবশ্যম্ভাবী।
  • মৌসুমি ফলঃ কম খরচে ওজন কমাতে চাইলে বিদেশি ফলের চেয়ে দেশীয় ফল খেতে পারেন। ভিটামিনে ভরপুর আবার সহজলভ্য। 

কম খরচে কিভাবে ওজন কমাবেন

  • গ্রীন টিঃ গ্রীন টি কিনতু এন্টিঅক্সিডেন্টে সমৃদ্ধ। বর্তমানে এর মূল্য ও খুব বেশি নয়
  • ছোলাঃ কম খরচে ওজন কমাতে হলে আপনার প্রয়োজনীয় পুষ্টি কি ধরবের খাবার থেকে আসবে তা আপনার নির্ধারণ করতে হবে। আপনি হিসেব করবেন আপনার কত ক্যালরি খাবার প্রয়োজন। সেক্ষেত্রে ছোলা সহজলভ্য এবং কম খরচের একটি খাবার 
  • সরিষার তেলঃ কম খরচে ওজন কমাতে সরিষার তেল ব্যবহার করুন। এটি স্বাস্থ্যকর এবং যদি গ্রাম থেকে আনিয়ে নিতে পারেন তবে সাশ্রয়ী। 
  • চিনা বাদামঃ ওজন কমাতে কাঠবাদাম খেতে হবে তা কিন্তু নয়। আপনি চাইলে দেশীয় চিনা বাদাম খেতে পারেন।
  • লেবুঃ ওজন কমাতে অনেকে এপেল সিডার ভিনেগার ব্যবহার করেন। আপনি চাইলেই এ খরচ কমাতে পারেন। কুসুম গরম পানি লেবু+ মধু+ একচিমটি লবন (যদি গ্যাস্ট্রিক এর সমস্যা থেকে থাকে) যোগ করে পান করুন।

টিপসঃ

  1. ডায়েট ফুড পরিত্যাগঃ ডায়েট ফুড ওজন কমায় এটি একটি ভুল ধারনা।যারা ওজন কমাতে চান ডায়েট কোল্ড ড্রিংক, সুগার ফ্রি খাবার কিংবা লো ফ্যাট খাবার ত্যাগ করবেন। কেননা এইসব খাবারে আর্টিফিশিয়াল সুগার ব্যবহার করা হয় সেগুলো খাওয়া উচিত নয়। আর্টিফিশিয়াল সুগারে অনেক ক্ষতিকর উপকরণ থাকে। এইগুলো কিডনির জন্য ক্ষতিকর। এছাড়াও নিয়মিত এইধরনের খাবার খেলে ক্যান্সারের ঝুঁকিও বেড়ে যায়
  2. ওজন কমানোর ক্ষেত্রে আগেই আমরা ভেবে নেই ওজন কমানো ব্যয়বহুল।ওজন কমানোর জন্য আপনার করনীয় মন স্থির করা। প্রতিদিনের খাদ্যাভ্যাস পরিবর্তন করুন। শুরুতে প্রতিদিনের খাবার থেকে অতি কার্বোহাইড্রেড খাবার কমান। ভাজা পোড়া খাবার বাদ দিন। চিনি জাতীয় খাবারকে তালিকা থেকে বাদ দিন। এরপর ধীরে ধীরে হেলদি খাদ্যাভ্যাস এর অভ্যস্ত হবেন।
  3. পরিমিত খাবার এবং ব্যায়াম ই পারে আপনার ওজন কে নিয়ন্ত্রণ এ আনতে, তাই অহেতুক ভয় পেয়ে পিছিয়ে যাবেন না।
আরও পড়ুনঃ
গর্ভাবতী মা এর অধিক গরম লাগার কারন ও করনীয়
গর্ভবতী ও দুগ্ধদানকারী মা এর রোজায় করনীয়
গর্ভধারণে বিলম্বিত? কোন ভুল করছেন না তো?
গর্ভকালীন ডায়বেটিস এ মা এর করণীয়
গর্ভাবস্থায় কোষ্ঠকাঠিন্য থেকে মুক্তি পেতে করনীয়
নবজাতক এর কিছু সাধারন সমস্যা
আবহাওয়া অনুযায়ী শিশুর পোশাক
শিশুর কৃমি থেকে কিভাবে মুক্তি পাবেন?

সম্পর্কিতপোস্ট

সম্পর্কিত পোস্ট

মন্তব্য করুন বা প্রশ্ন করুন ?

অনুসরণ করুন