গর্ভাবতী মা এর অধিক গরম লাগার কারন ও করনীয়

গর্ভাবতী মা এর অধিক গরম লাগার কারন ও করনীয়

গর্ভাবতী মা এর অধিক গরম লাগার কারন ও করনীয়
গর্ভাবস্থা
একটি আনন্দের ও রোমাঞ্চকর সময়। এই মুহূর্তের জন্য সকল নারীই অপেক্ষায় থাকেন। গর্ভাবস্থায় মাকে বিভিন্ন সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়। তার মাঝে অন্যতম তাপমাত্রা বেড়ে যাওয়া বা অতিরিক্ত গরম লাগা।।  আসুন আমরা জেনে নেই গর্ভাবতী মা এর অধিক গরম লাগার কারন ও করনীয়  কি?

অতিরিক্ত গরম লাগার লক্ষনঃ
গর্ভাবস্থায় মা এর অতিরিক্ত গরম লাগে। অতিরিক্ত গরম লাগার কারনে মা অসুস্থ বোধ করেন।

  • এই সময়ে মা অতিরিক্ত গরম অনুভব করতে পারেন অথবা ঘর্মাক্ত হতে পারেন।। কেননা মা এর শরীরে আরেকটি প্রান রয়েছে।।অত্যাধিক গরমের কারনে মা এর শরীর ক্লান্ত, অবসাদগ্রস্থ হতে পারে।
  • অস্বস্তিবোধ করতে পারেন মা।
  • শরীরের লবণ ও পানি কমে যেতে পারে
  • পানিশূন্যতা ও হতে পারে।
  • মাথা ঘুরানো, মাথাব্যথার অনুভূতি, বমি বমি ভাব বা বমি বোধের অনুভূতি
  • অজ্ঞান হয়ে যাওয়া বা চোখে অন্ধকার দেখার মতো এক অনুভূতি।
  • হঠাৎ মুখের মধ্যে শুকনো ভাব অনুভব করা


কেন গরম লাগেঃ

স্বাভাবিক মানুষের তাপমাত্রা ৩৭ ডিগ্রি সেন্টিগ্রেড কিন্তু গর্ভাবস্থায় মা এর দেহের তাপমাত্রা ৩৯ ডিগ্রি পর্যন্ত বাড়তে পারে, ফলে মা অতিরিক্ত গরমবোধ করেন। মেডিকেল টার্ম এ গর্ভাবস্থায় অতিরিক্ত গরম এর জন্য ব্যবহৃত শব্দটি হল হাইপারথার্মিয়া
গরম লাগার অন্যতম কারনগুলো হলঃ

  1. হরমোন এর পরিবর্তনঃ মা এর হরমোনের তারতম্যর কারনে গরম লাগে মা এর। এ সময় এস্ট্রোজেন ও প্রজেস্টোরন (estrogen and progesterone) উৎপাদন হয় যা শরীর এর তাপমাত্রা বাড়ায়।
  2. ওজন বৃদ্ধিঃ মা এর ওজন বেড়ে যায় তাই গরম লাগে।
  3. অতিরিক্ত দুশ্চিন্তাঃ অতিরিক্ত দুশ্চিন্তার জন্য মা অস্থিরবোধ করেন ফলে শরীর উত্তেজিত হয়।
  4. মেটাবোলিজম বেড়ে যাওয়াঃ এই সময়ে মা এর শরীর মা ও শিশু উভয়ের জন্য ক্যালরি খরচ করে তাই মেটাবোলিজম বেড়ে যায় ফলে মা এর গরম লাগে।
  5. হাইপোথায়রেয়ডিজমঃ মা এর যদি থায়রয়েড বেড়ে যায় তবে মা এর অতিরিক্ত ঘাম, গরম, হ্রদস্পন্দন বেড়ে যেতে পারে। thyroxine (T4) and tri-iodothyronine (T3) বেড়ে গেলে গরম লাগে গর্ভবতী মা এর। আয়োডিন কমে গেলে থায়রয়েড ইস্যু আরো বেড়ে যেতে পারে।
  6. ক্রনিক রোগঃ ক্রনিক জাতীয় রোগ এর জন্য গরম লাগতে পারে মায়ের।
  7. সংক্রমণ বা অন্যান্য চিকিৎসাগত অবস্থার কারণেঃ সংক্রমণ বা অন্যান্য চিকিৎসাগত অবস্থার কারনে মা এর গরম লাগতে পারে। 
  8. পর্যাপ্ত বিশ্রাম এর অভাবঃ মা যদি পর্যাপ্ত বিশ্রাম না নিতে পারেন তবে মা এর গরম লাগতে পারে।
  9. কর্মব্যস্ততাঃ সারাদিনের কর্মব্যস্ততা মা এর অধিক গরমের সৃষ্টি করে।
  10. তাপমাত্রা বেড়ে যাওয়া বা আবহাওয়ার প্রভাবঃ মা এর পারিপার্শ্বিক তাপমাত্রা বৃদ্ধি পেলে মা এর গরম লাগতে পারে।
  11. রক্ত সঞ্চালন বৃদ্ধি পাওয়াঃ মা এর রক্ত সঞ্চালন বৃদ্ধি পায় তাই মা এর অতিরিক্ত গরম লাগে।
  12. রক্তে সুগার এর মাত্রা কমে গেলেঃ রক্তে সুগার এর মাত্রা কমে গেলে বা হাইপোগ্লাইসেমিয়া হলে অত্যাধিক গরম লাগতে পারে।


গরম বোধ থেকে রক্ষা পেতে কি করনীয়ঃ 

মা গরম থেকে নিজেকে সুস্থ্য রাখতে কি করতে পারেন তা নিচে দেওয়া হলঃ

  1. অধিক পানি পান করুন
  2. আরামদায়ক সুতি পাতলা পোশাক পরিধান
  3. নিয়মিত গোসল করুন
  4. অতিরিক্ত শারীরিক চাপ এড়িয়ে চলুন
  5. আবহাওয়া উচ্চ তাপমাত্রা সম্পন্ন হলে ঘরেই থাকুন
  6. চর্বিযুক্ত খাবার, মশলাদার খাবার এড়িয়ে চলা উচিত। এসব খাবার গর্ভাবস্থায় গ্যাস এবং বদহজমের কারণ হতে পারে যার ফলে অতিরিক্ত গরম লাগতে পারে।
  7. ক্যাফেইন জাতীয় খাবার পরিহার করা
  8. অল্প করে বার বার খাওয়া ও সাথে অধিক পরিমানে খাওয়া থেকে বিরত থাকা উচিত। 
  9. প্রয়োজনীয় ভিটামিন এবং মিনারেলযুক্ত খাবার গ্রহন করুন।
  10. বাইরে বের হলে ওয়েট টিস্যু, ছোট হাতে রাখা যায় এমন চার্জার ফ্যান রাখতে পারেন


রাতে মা এর অতিরিক্ত ঘেমে থাকলে 

  1. এসি দিয়ে রুমের তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণ করতে পারেন।
  2. মৃদু আলো ব্যবহার করুন
  3. ভিজা রুমাল ব্যবহার করুন। গা মুছার অভ্যাস করুন।
  4. বার বার গোসলের অভ্যাস ত্যাগ করুন।
  5. সুতি বিছানার চাদর ব্যবহার করুন
  6. এসি না থাকলে জানালা খুলে বাতাস চলাচলের ব্যবস্থা করুন।

গর্ভাবস্থায় ঘামা বা গরম লাগা খুবই স্বাভাবিক ব্যপার। অসহনীয় বোধ করতে পারেন মা, ঘুমাতে সমস্যাবোধ হতে পারে। ঘুমের মাঝে ভিজে যেতে পারেন।। ভয়ের কিছু নেই।

এছাড়াও প্রসবের পরবর্তী ১-২ মাস এই সমস্যা হতে পারে। কেননা তখন আপনার হরমোন গুলো পূর্বের অবস্থায় ফিরছে। একজন গর্ভবতী মা তিব্র শীতেও গরম অনুভব করতে পারেন।।
গর্ভাবস্থায় মা এর শরীরে যে পানি জমে তা প্রসব পরবর্তী অবস্থায় ধীরে ধীরে ভাংগতে শুরু করে যা ঘামের মাধ্যমে বের হয়ে যায়। এজন্য মা ঘুমের মাঝেও ঘেমে থাকতে পারেন।
মোট কথা গর্ভাবস্থায় ঘেমে যাওয়া বা গরম লাগা একেবারে স্বাভাবিক ব্যপার। 

ভয় না পেয়ে কিভাবে নিজেকে ভাল সুস্থ ও হাইড্রাইড রাখা যায় সে পদ্ধতি অনুসরণ করুন। ভাল থাকুক সকল মা।

ref:
healthline.com
netdoctor.co.uk
Thebabybump.com

আরও পড়ুনঃ
গর্ভবতী ও দুগ্ধদানকারী মা এর রোজায় করনীয়

গর্ভধারণে বিলম্বিত? কোন ভুল করছেন না তো?

গর্ভকালীন ডায়বেটিস এ মা এর করণীয়

গর্ভাবস্থায় কোষ্ঠকাঠিন্য থেকে মুক্তি পেতে করনীয়

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp
Share on skype
Share on email

সম্পর্কিতপোস্ট

সম্পর্কিত পোস্ট

মন্তব্য করুন বা প্রশ্ন করুন ?

অনুসরণ করুন

Share via
error: Alert: PawkyThings.com এর লেখা ও ছবি কপি করা নিষেধ!
Send this to a friend