শিশুরা কেন সব কিছু মুখে দেয় ? সতর্কতা ও করনীয়

শিশুরা কেন সব কিছু মুখে দেয় সতর্কতা ও করনীয়

শিশু মুখে সামনে যা পাচ্ছে তাই দিচ্ছে? শিশু হাতের সবগুলো আংগুল মুখে দিয়ে দিচ্ছে বা খেলনা, ওর কাথাঁ নিয়ে বা যা পাচ্ছে তাই মুখে দিচ্ছে❔ আজ আমরা জানবো শিশুরা কেন সব কিছু মুখে দেয় ?
সব শিশু একই ধরনের স্বভাব নিয়ে জন্মায় না। সব শিশু যে মুখে আংগুল পুরে দিবে তা কিন্ত নয়। কিছু শিশু আছে তারা এইসব স্বভাববিরুদ্ধ।

শিশুরা কেন সব কিছু মুখে দেয় ?

  •  শিশুরা যা সামনে পায় তা মুখে দিয়ে দেয় কারণ ওদের কাছে আশেপাশের সব নতুন। ওরা সব কিছুর স্বাদ নিতে চায়।
  • আগ্রহের বশে বা কখনো মুখের পেশীর অস্বস্তি এর জন্য মুখে দিয়ে চাবায়।
  • এছাড়া ওরা দুধ চুষে অভ্যস্ত। তাই ওরা যা সামনে পায় তা চুষতে চেস্টা করে।
  • মুরুব্বীরা বলেন বাচ্চার দাঁত উঠার সময় হলে ওদের মাড়িতে অস্বস্তি হয়, তাই তারা মুখে সব দেয়। 
  • এটি শিশুর মুখের এক ধরনের ব্যায়াম ও।তাই এটি এক অর্থে মংগলজনক।
  • অনেক শিশু তার পায়ের আংগুল ও মুখে দেয়,সেটিও তার মাড়ি শক্ত হচ্ছে তাই কামড়ানোর চেস্টা করে।
  • অনেকেই বলে বাচ্চার ইম্যুউনিটি সিস্টেম ভাল হয় মাউথিং বা মুখে কিছু দিয়ে চাবানোর ফলে।

বলা চলে কোনো কিছু মুখে দেয়া বাচ্চার মাড়ি শক্ত হওয়ার বা দাঁত ওঠার প্রাথমিক লক্ষন।  

যাই হোক আপনার শিশুর জন্য আপনার কি করনীয়, আসুন জেনে নেই।

👉 বাচ্চাকে টিথার কিনে দিতে পারেন, অবশ্যই সেটি নির্দিষ্ট সময় পর পর বা দিনে ২-৩ বার গরম পানিতে ওয়াশ করে দিবেন।
👉প্যাসিফায়ার ও কিনে দিতে পারেন
👉মুখে কিছু দেয়া মানে আপনি অচিরেই বাচ্চাকে পিউরি বা সলিড খাবার এর দিকে ধাবিত করতে পারেন।
👉৬-৭ মাস বয়স হলে বিস্কিট, নরম কোন ফল ওর হাতে দিতে পারেন ফিংগার ফুড হিসেবে।তবে খেয়াল রাখতে হবে যেন গিলে ফেলতে পারে এমন কোন খাবার ওর হাতে না যায়।
👉বাচ্চার জন্য বিপদজনক সব কিছু সরিয়ে রাখতে হবে।শ্যাম্প, ফিনাইল জাতীয় পদার্থ বা ওষুধ।
👉বাচ্চার গলায় কিছু যেন না আটকে বা চকিং না হয় বা মুখে যেন বাচ্চা কিছু  না দিয়ে ফেলে সচেতন থাকতে হবে।
👉সাধারণত ৩ বছর পরে বাচ্চাদের  অভ্যাস চলে যায়।।তাই বাচ্চাকে ”না”  শব্দটি বলে বুঝান এটি ক্ষতিকর।

আর এই অভ্যাস দুর হওয়ার আগে অবশ্যই আপনাদের সচেতন থাকতে হবে। সব বাচ্চা এক নয়, কিছু বাচ্চা দাতঁ উঠার আগে মুখে জিনিস দিয়ে দেয়, আবার কিছু বাচ্চা দাতঁ উঠার পরে।

আবার অনেক বাচ্চার মুখে দেয়ার অভ্যাস হয় না। আবার কিছু বাচ্চা ২-৩ বছর হওয়ার আগে এই অভ্যাস ছেড়েঁ দেয়, আবার কিছু বাচ্চার এই অভ্যাস ত্যাগ করাতে মা বাবার কাঠ খড় পুড়াতে হয়।🚼🚼🚼

আজ আমরা জানলাম শিশুরা কেন সব কিছু মুখে দেয় ? সতর্কতা ও করনীয় ।।

আরও পড়ুন
নবজাতকের ঘুমের সময়
নবজাতক এর কিছু সাধারন সমস্যা
আবহাওয়া অনুযায়ী শিশুর পোশাক
শিশুর কৃমি থেকে কিভাবে মুক্তি পাবেন?
মোবাইল স্ক্রিনিং বা গেজেট আসক্তিতে বাচ্চাদের কিভাবে সামলাবেন?

 

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp
Share on skype
Share on email

সম্পর্কিতপোস্ট

সম্পর্কিত পোস্ট

মন্তব্য করুন বা প্রশ্ন করুন ?

অনুসরণ করুন

Share via
error: Alert: PawkyThings.com এর লেখা ও ছবি কপি করা নিষেধ!
Send this to a friend