গর্ভাবস্থার ৭ম সপ্তাহ । সপ্তাহ অনুযায়ী

গর্ভাবস্থার ৭ম সপ্তাহ

গর্ভাবস্থার ৭ম সপ্তাহ এর আজকের আর্টিকেলে থাকছে-

১. ৭ম সপ্তাহে ভ্রুন এর উন্নতি
২. গর্ভাবস্থার ষষ্ঠ সপ্তাহে মায়ের লক্ষন
৩. ৭ম সপ্তাহে মা এর করনীয়
৪. গর্ভাবস্থায় কি এড়িয়ে চলবেন
৫. টিপস

গর্ভাবস্থার ৭ম সপ্তাহ মানে মা এখন দ্বিতীয় মাসে আছেন। আর মাত্র ৭ মাস বাকি।। মা এর ভিতর ভ্রুন ধীরে ধীরে বড় হচ্ছে কিন্ত মা এর পেট দেখে বোঝার কোন উপায় নেই। 

৭ম সপ্তাহে ভ্রুন এর উন্নতিঃ 

  • গর্ভাবস্থার ৭ম সপ্তাহে ভ্রুন এর আকার একটি ব্লুবেরির মত। প্রতি মুহূর্তে মা এর পেটের ভিতরে ভ্রুন দ্রুত গতিতে বেড়ে উঠছে। 
  • ভ্রূন এর মাথার মস্তিস্কে ১ মিনিটে প্রায় ১০০ টি নতুন কোষ তৈরি হচ্ছে। 
  • এই সময়ে ভ্রূন কিডনি গঠন শুরু হয়ে যাচ্ছে।
  • হাত, পা, মুখ এর গঠন তৈরি হচ্ছে। 
  • কয়েকদিন এর মাঝে ভ্রূন এমনিয়টিক ফ্লুইড থেকে মূত্র উৎপাদন করবে।
  • প্লাসেন্টার গঠন শুরু হয়েছে যা এম্বেলিকাল কর্ডের মাধ্যমে ভ্রূণের জন্য মায়ের দেহ থেকে পুষ্টি ও অক্সিজেন সংগ্রহ করতে শুরু করে দিয়েছে।
  • অগ্নাশয় এবং অ্যাপেন্ডিক্স-এর মতো পাচক অঙ্গ গঠন শুরু হয়।
  • চোখের কর্ণিয়া, আইরিশ, লেন্স, পিউপিল, রেটিনার গঠন সপ্তম সপ্তাহে শুরু হয়ে যায়।

 

গর্ভাবস্থার সপ্তম সপ্তাহে মায়ের লক্ষনঃ
গর্ভাবস্থার সপ্তম সপ্তাহ এ মায়ের লক্ষনগুলো হলঃ

  1. বমি ভাবঃ গর্ভাবস্থার সপ্তম সপ্তাহে মা এর বমি ভাব বজায় থাকতে পারে। এতে মা এর দুর্বলতা সৃষ্টি হতে পারে। বমি ভাব কাটাতে বমির ওষুধ, আদা কুচি, টক জাতীয় কিছু খেতে পারেন।
  2. ক্লান্তিঃ অতিরিক্ত বমির কারনে বা হরমোনের পরিবর্তন মা কে ক্লান্ত করে দিতে পারে। তাই পর্যাপ্ত বিশ্রাম নিন।
  3. অরুচিঃ গর্ভাবস্থায় অধিকাংশ মা এর অরুচি হয়ে থাকে।। গন্ধপ্রবন হয়ে যেতে পারেন। রান্না থেকে শুরু করে সবকিছুর ঘ্রান খারাপ লাগতে পারে। ফলে মা এর খাবার গ্রহনে অরুচি হতে পারে। গর্ভাবস্থার সপ্তম সপ্তাহে ব্যাপার গুলো তিব্র আকারে দেখা দেয়।
  4. ব্রন বা পিম্পলঃ গর্ভাবস্থায় মা এর মুখে ব্রন বা পিম্পল হয়ে থাকে। এটি খুব স্বাভাবিক। এই সময়ে মা এর মুখ তৈলাক্ত হয়ে থাকে, বিভিন্ন হরমোন এর পরিবর্তন এর জন্য এমন হয়ে থাকে। 
  5. ঘন ঘন প্রস্রাবের বেগঃ গর্ভবস্থার সপ্তম সপ্তাহে মা এর জরায়ু মূত্রথলির উপর চাপ দিয়ে থাকে, তাই মা এর ঘন ঘন প্রস্রাবের বেগ আসতে পারে। এটি খুব স্বাভাবিক। 
  6. মাথাব্যাথাঃ গর্ভাবস্থায় মা এর মাথা ব্যাথা হতে পারে। গর্ভবস্থায় মাথা ব্যথায় কপালের দুই পাশে, মাথার পিছনে বা চোখে ব্যথা অনুভব হতে পারে। মাইগ্রেনের কারণে মাথা ব্যথায় তীব্র ব্যথা হতে পারে যেটা কখনো কখনো ঘাড় পর্যন্ত ছড়িয়ে পড়ে।
  7. হজমে সমস্যাঃ এই সময়ে মা এর খাবার হজমে সমস্যা হয়।। তাই এসিডিটি হতে পারে।
  8. অতিরিক্ত লালা/ থু থু জমাঃ গর্ভাবস্থার সপ্তম সপ্তাহে অতিরিক্ত ক্লান্তি বা মস্তিষ্কের উপর চাপ পড়া বা কিছু ওষুধ খাওয়ার পর মাঝে মাঝে আমাদের স্নায়ুতন্ত্রে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হয়। এতে মস্তিষ্ক কিছু ভুল সংকেত পাঠায়। এতে মুখে থুতু বেড়ে যায়। এ থেকে লালা আসতে পারে। এটি এড়াতে ভিটামিন সি ও পুষ্টিকর খাবার গ্রহণ করা উচিত।
  9. মেজাজের তারতম্যঃ ষষ্ঠ সপ্তাহের ন্যায় এই সপ্তাহেও মেজাজের তারতম্য হতে পারে। অল্পতেই মা রেগে যেতে পারেন অথবা বিষন্নতায় আক্রান্ত হতে পারেন।


গর্ভাবস্থায় সপ্তম সপ্তাহে মায়ের করনীয়ঃ
গর্ভাবস্থার ৭ম সপ্তাহ খুব গুরুত্বপূর্ণ মায়ের জন্য। এই মুহূর্তে মা এর শরীরে খুব দ্রুত পরিবর্তন হচ্ছে। ভ্রুন ধীরে ধীরে বেড়ে উঠছে। এই সপ্তাহে মা এর করনীয় বিষয়গুলো হলঃ

  • গাইনি বিশেষজ্ঞ এর সাথে দেখা করে পরামর্শ গ্রহণ করা। বাসায় প্রেগন্যান্সি পরিক্ষা করে যখনই জানতে পারবেন আপনি গর্ভধারন করেছেন, এর পরেই ডঃ এর তত্ত্বাবধানে যাওয়া উচিত।। ডঃ আপনার মেডিকেল হিস্ট্রি নিয়ে আপনাকে দিকনির্দেশনা দিবেন। ব্লাড প্রেশার, ডায়বেটিস, প্রস্রাব পরিক্ষা করতে দিবেন ডঃ।
  • ওজন দিকে লক্ষ্য রাখাঃ পুরো গর্ভাবস্থায় ওজনের দিকে লক্ষ্য রাখা উচিত মা এর। অহেতুক খাবার বাড়িয়ে ওজন বৃদ্ধি করলে মায়ের নিজের শারীরিক ক্ষতি হতে পারে৷ তাই সচেতন থাকতে হবে। অনেক মায়ের আবার শারীরিক দুর্বলতা থেকে ওজন কমে যায়।
  • গর্ভপাত বা একটোপিক প্রেগন্যান্সি কিনা লক্ষ্য রাখতে হবেঃ গর্ভাবস্থার ৭ম সপ্তাহ খুব গুরুত্বপূর্ণ মায়ের জন্য। এই সময়ে গর্ভপাত হওয়ার সম্ভাবনা অনেক বেশি। তাই বিশ্রাম এর প্রয়োজন। এই সময়ে যদি মায়ের অতিরিক্ত পেট ব্যাথা হয়ে থাকে অবশ্যই বিশেষজ্ঞ এর শরনাপন্ন হতে হবে।
  • বিভিন্ন মাল্টিভিটামিন, ফলিক এসিড গ্রহন শুরু করা উচিত।
  • অধিক কায়িক পরিশ্রম করা যাবে না।।
  • প্রোটিন, আয়রন সমৃদ্ধ খাবার গ্রহণ করতে হবে।
  • লেবু, মালটা, পানি জাতীয় ফল খান। শরীরকে হাইড্রাইড রাখুন।


গর্ভাবস্থায় কি এড়িয়ে চলবেনঃ
গর্ভাবস্থায় কিছু ব্যাপার এড়িয়ে চলতে হয়। তার মাঝে কিছু ব্যাপার নিচে দেয়া হলঃ

  1. ধূমপান ও এলকোহল ত্যাগ করাঃ গর্ভাবস্থায় অনেক মহিলাদেরই ধূমপান ও এলকোহল এর অভ্যাস থাকে। তা অবশ্যই বাদ দিতে হবে।
  2. অতিরিক্ত ভ্রমন করা যাবে না।
  3. অতিরিক্ত ক্যাফেইন গ্রহন করা যাবে না।
  4. বাইরের ফাস্টফুড বেশি খাওয়া যাবে না।
  5. অধিক মশলাদার খাবার এড়িয়ে যেতে হবে।


টিপসঃ

এই সপ্তাহে মায়ের জন্য টিপস হলঃ

  • মনকে ভাল রাখতে বই পড়া উচিত। ধর্মীয় কাজে মন দেয়া উচিত।
  • নিজেকে ব্যস্ত রাখা উচিত 
  • মুড সুইং এর জন্য কাউন্সিলিং করুন নিজেকে।
  • হালকা রিলাক্সজেশন ব্যায়াম করুন।
  • আপনার পার্টনার এর সাথে সময় কাটান। সে ব্যস্ত হলে নিজেকে ভাল রাখার উপায় বের করে নিন।
  • যেকোনো সমস্যায় ডক্টর এর পরামর্শ নিন।
  • দাঁত এর যত্ন নিন।

গর্ভাবস্থার প্রতিটি সপ্তাহ সম্পর্কে ধারনা দেয়ার চেষ্টা করছি আমরা। ভাল লাগলে অন্য শেয়ার ও কমেন্ট করবেন।

আরও পড়ুনঃ
গর্ভাবতী মা এর অধিক গরম লাগার কারন ও করনীয়
গর্ভবতী ও দুগ্ধদানকারী মা এর রোজায় করনীয়
গর্ভধারণে বিলম্বিত? কোন ভুল করছেন না তো?
গর্ভকালীন ডায়বেটিস এ মা এর করণীয়
গর্ভাবস্থায় কোষ্ঠকাঠিন্য থেকে মুক্তি পেতে করনীয়
নবজাতক এর কিছু সাধারন সমস্যা
আবহাওয়া অনুযায়ী শিশুর পোশাক
শিশুর কৃমি থেকে কিভাবে মুক্তি পাবেন?

 

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp
Share on skype
Share on email

সম্পর্কিতপোস্ট

সম্পর্কিত পোস্ট

মন্তব্য করুন বা প্রশ্ন করুন ?

অনুসরণ করুন

Share via
error: Alert: PawkyThings.com এর লেখা ও ছবি কপি করা নিষেধ!
Send this to a friend